0
৳ 0
দিপু সরকার
লেখকের বিস্তারিত

ফিকশন নন-ফিকশন বই এর বাইরে বিজ্ঞান ও গণিত বিষয়ক বই এর একজন তরুণ লেখক দীপু সরকার। দীপু সরকার ১৯৯২ সালের ১৭ই মার্চ বরিশাল ...ফিকশন নন-ফিকশন বই এর বাইরে বিজ্ঞান ও গণিত বিষয়ক বই এর একজন তরুণ লেখক দীপু সরকার। দীপু সরকার ১৯৯২ সালের ১৭ই মার্চ বরিশাল জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তার পৈতৃক নিবাস পিরোজপুর জেলার বিন্না গ্রামে। তার বাবা এইচ কে সরকার ও মা মৃদুলা রানী সরকার। ২০০৭ সালে বরিশাল জিলা স্কুল থেকে মাধ্যমিক এবং ২০০৯ সালে অমৃতলাল দে কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন তিনি। এরপর দীপু স্নাতকজীবন শুরু করেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এবং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে। ছোটবেলা থেকেই বই পড়ার অভ্যাস দীপু সরকারের। সকল বিষয়ের মধ্যে গণিত ও বিজ্ঞানের প্রতি ছিল তার আলাদা আকর্ষণ। সেই আগ্রহকে লেখালেখির মাধ্যমে আরেক রূপ দান করেন তিনি। শিক্ষার্থীদের কাছে বিজ্ঞান ও গণিত বিষয়ক ভয়-ভীতি দূর করে মজা করে পড়া ও শেখার উদ্দেশ্যে বই লেখা শুরু করেন। এ পর্যন্ত দীপু সরকারের বই এর সংখ্যা ৮টি। দীপু সরকার এর বই সমূহ হলো ‘গল্পে চিত্রে বীজগণিত’, ‘জ্যামিতি: লক্ষ্য যখন অলিম্পিয়াড’, ‘কম্বিনেটরিক্স: গণিতের মজার দুনিয়া’, ‘জ্যামিতির যত কৌশল’, ‘সংখ্যাতত্ত্ব: লক্ষ্য যখন অলিম্পিয়াড ইত্যাদি। একাডেমিক বই ছাড়াও, দীপু সরকার এর বই সমগ্র ছাত্রছাত্রীদের বিজ্ঞান বিষয়ে আগ্রহী করে তুলবে, গণিতকে আরও সহজ করে তুলবে এবং অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান ও গণিত সম্পর্কে গভীরভাবে জানতে সাহায্য করবে। বর্তমানে তিনি টেকনিক্যাল ম্যানেজার হিসেবে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স কোম্পানি লিমিটেড তথা বিটিসিএল এ কর্মরত আছেন। লেখালেখির পাশাপাশি তিনি গণিত অলিম্পিয়াডের টিমের সাথেও যুক্ত।

Read More
সৌমিত্র চক্রবর্তী
Assistant Professor, Dept. of Pathology, Bangabandhu Sheikh Mujib Medical University (BSMMU)

১৯৮৭ সালের ১ জানুয়ারি রাজশাহীতে জন্ম বিজ্ঞানমনস্ক মানুষ ও লেখক সৌমিত্র চক্রবর্তীর। কাঞ্চননগর মডেল হাই স্কুল থেকে প্রাইমা...১৯৮৭ সালের ১ জানুয়ারি রাজশাহীতে জন্ম বিজ্ঞানমনস্ক মানুষ ও লেখক সৌমিত্র চক্রবর্তীর। কাঞ্চননগর মডেল হাই স্কুল থেকে প্রাইমারি এবং ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। বই পড়ার নেশা ছোটবেলা থেকেই, আর এ বিষয়ে সবসময়ই উৎসাহ দিয়ে গেছেন তার বাবা-মা। তবে ক্যাডেট কলেজে পড়াকালে কলেজের লাইব্রেরিতে থাকা অনেক বিরল বইয়ের খোঁজ পেয়েছিলেন। সেসব বইয়ের মাঝে তাকে সবচেয়ে বেশি আকৃষ্ট করতো গণিতের বই। ফলে গণিতের প্রতি আগ্রহটা তার সহজাত, কিন্তু এর পাশাপাশি তিনি জীববিজ্ঞানকেও আপন করে নিয়েছিলেন। অপরদিকে ঝিনাইদহ সরকারি স্বাস্থ্য সহকারী প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ বাবা এবং ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের নার্সিং সুপারভাইজার মায়ের অনুপ্রেরণাও তাকে প্রভাবিত করেছে। তাই চিকিৎসক হওয়ার আশায় তিনি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ থেকে পড়াশোনা শেষ করেন। বর্তমানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাসিস্টেন্ট প্রফেসর হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। কিন্তু গণিত এবং জীববিজ্ঞানের প্রতি ভালবাসা থেকে তিনি পাশাপাশি লেখালেখিও করছেন। সৌমিত্র চক্রবর্তীর বই লেখার ধাঁচ অনেকটা গবেষণাধর্মী, এছাড়াও বাংলায় সহজভাবে তিনি গণিত এবং বিজ্ঞানের গুরুগম্ভীর বিষয়গুলো বিশ্লেষণ করে থাকেন যাতে করে সাধারণ পাঠকের কাছে বিষয়গুলো সহজ হয়ে দাঁড়ায়। সৌমিত্র চক্রবর্তী এর বই সমূহ এর মাঝে উল্লেখযোগ্য হলো ‘প্রাণের মাঝে গণিত বাজে’, ‘জীবনের গল্প’, ‘জীবনের গাণিতিক রহস্যঃ পপুলেশন জেনেটিক্স ও গেইম থিওরি’, ‘গণিতের সাথে বসবাস’, ‘খণ্ড ক্যানভাস’ ইত্যাদি। বই লেখার পাশাপাশি তিনি আরো কিছু কাজের জন্য প্রশংসিত হয়েছেন। তিনি একাধারে বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডের একাডেমিক কাউন্সিলর, বাংলাদেশ জীববিজ্ঞান অলিম্পিয়াড কমিটির কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী এবং ময়মনসিংহ প্যারালাল ম্যাথ স্কুলের উদ্যোক্তা। তাঁর সময় কাটে অবসরে বই পড়ে ও প্রোগ্রামিং চর্চা করে।

Read More